১.
আমল বিনে ওই ঈমানের
কীই বা আছে মূল্য
হবে নাতো কভু সে যে
জান্নাতেরই তুল্য।

৩.
ঈমান আমান সবি হারলো
করোনা এলো দেশে
আল্লাহর আযাব ধরলো ঘিরে
মরলো দেখো কেশে।

৪.
চুল পেকেছে গোঁফ পেকেছে
পাকেনি তো মন
ধড়টা থেকে জীবন যেতে
লাগবে কতক্ষণ।

৫.
কোকিল ডাকে কুহু কুহু
সুবহানাহুর নাম
আল্লাহর গোলাম হওয়াই শুধু
মুমিনগণের কাম।

৬.
মনের চোখে ঘুম আসেনা
একলা জেগে রই
অতিমারিহীন দিনগুলো সব
হারিয়ে গেল কই!

৭.
মনের বনে আগুন জ্বলে
সুখের ফাগুন আসেনা
শ্রাবণ মেঘে বৃষ্টি ঝরে
দুঃখের দহন নেভেনা।

৮.
বৃষ্টিভেজা দিনগুলোতে
মিষ্টি রোদের হাসি
অনাহারীর দিনগুলো যায়
চোখের জলে ভাসি।

৯.
ধনের বাঁধন মায়ার বাঁধন
ছেড়ে যেতে হয়
এ দুনিয়ায় মরণকালে
কেউ তো কারো নয়।

১০.
অনন্তকাল মহাকাল
আছে পরকাল
সুখী রবে জান্নাতীরা
সেথায় চিরকাল।

১১.
আমার গানের ফুল পাখিরা
রঙিন ডানা মেলে
আল্লাহ নামের গান গেয়ে যাই
দুঃখ-জ্বালা ভুলে।

১২.
দিন চলে যায় মাস চলে যায়
নিরব-নিরালায়
হারিয়ে যাওয়া মায়ের স্মৃতি
কাঁদায় শুধু হায়!

১৩.
বাবার কথা মনে পড়ে
প্রতি ক্ষণে ক্ষণে
মাথার ঘাম পায়ে ফেলে
অন্ন দিতেন এনে।

১৮.
ঝুমঝুমাঝুম বিষটি পড়ে
আল্লাহ নামের মিষটি স্বরে
মহান রবের মহান লীলায়
কদম কেয়া গন্ধ বিলায়।

১৯.
অল্পে তুষ্ট অন্তর
ভেতর বাহির সুন্দর
আল্লাহর ওপর তাওয়াক্কুল
হারায় নাতো কোনো কূল।

২০.
স্বেচ্ছাচারী মন যার
আঁধার-কালো জীবন তার
ডুবু ডুবু বেলা যায়
রয়না কোনো সাথী হায়!

২১.
আলকুরআনের বাণী ধরে
জীবনটাকে গড়বো তুলে
নৈতিকতার সমাজ গড়ে
জান্নাতি দার দেব খুলে।

২৪.
হৃদ-মাঝারে সদাই জ্বলে
দুঃখের দাবানল
রোহিঙ্গা ওই মানবতা
ফেলে চোখের জল।

২৮.
পুব গগনে সূর্য হাসে
ফুল পাখিদের মেলা
আশিন হাওয়ায় জমছে দেখি
কাশফুলেদের খেলা।

৩১.
ধনীরা হয় আরো ধনী
গরীবরা হয় গরীব
পুঁজিপতি বুর্জোয়ারা
হয়ে ওঠে সজীব।

৩২.
মন যে আমার নদী
বয় নিরবধি
আল্লাহ নামের প্রেমসাগরে
জীবন সমাধি।

৩৪.
নদীর বুকে
উথাল-পাথাল ঢেউ
দুঃখীজনের দুঃখ-ব্যথার
খোঁজ রাখেনা কেউ।

৩৯.
আমার জীবন
আমার নামায
গড়বে দেখো
প্রীতির সমাজ।

৪০.
হাসি-খুশি মন
জিনে মানবধন
হয়ে সমাজ-নেতা
সারে দুঃখ-ব্যথা।

৪২.
অন্নে-বস্ত্রে তুষ্ট হলে
স্বজন-পরিজন
ইবাদাতে গণ্য
সকল পরিশ্রম।

৪৩.
শান্ত বায়ু শান্ত নদী
শান্ত সমুদ্দুর
শান্তি-সুখের নীড় গড়া কী
রইবে বহুদূর!

৪৫.
দিনে দিনে বয়স বাড়ে
যুবক বুড়ো হয়
আল্লাহর দেয়া জীবনখানা
খেল-তামাশার নয়।