তোমার সুখে সুখ

হাতের সাথে হাত মিলিয়ে
বুকের সাথে বুক,
দুই নয়নে দেখাদেখি
চোখের সাথে চোখ।

তোমার আলোয় আলো নেবো
তোমার সুখে সুখ
সুখ সাগরে রাঙবে ভুবন
রইবে না যে দুখ!
…………………………………………..

চিবুক করে জবাই

জল টলোমল চোখ দেখাবার
সাধ্য সবার হয় না,
চোখের জলে হৃদয় ভাঙে
কাউকে তবু কয় না।

ছলের ঘরে বসত করে
ছল জানে না সবাই,
একলা চোখে জল গড়ায়ে
চিবুক করে জবাই।

মনের জ্বালা মনেই রেখে
হই জ্বালাদের ভাগি,
নিজের প্রতি নিজেই তখন
ভীষণরকম রাগি।
…………………………………………..

সোনাবউ

বাম পাঁজরের হাঁড়ের তৈরি
বাঁকা কও তো কী?
আমার সোনা বউয়ের মতো
তোমারও বউ-নি?

বউয়ের কিন্তু গুণও আছে
মনের ভিতর ভয়,
সেক্রিফাইজে সবার সেরা
মনটা করে জয়।

লাখো টাকার নেই গহনা
চায় না দামী শাড়ি,
হাসি মুখের বাক্যটা চায়
বাংলার সকল নারী।

দোষও আছে বউয়ের কিছু
স্বামী রে কয় সেরা,
বাংলাদেশের পুরুষ যত
আর সকলই ত্যাড়া।
…………………………………………..

তুমি পরম পাওয়া

হৃদয় ব্যাংকে একটাই লেন
একজনই তাঁর গ্রাহক,
যতো লেনদেন তাঁর সাথে হয়
আর নেই কোনো বাহক।

হৃদ জানালার কক্ষপথে
তোমার আসা যাওয়া,
সুখে তুমি দুঃখেও তুমি
তুমি পরম পাওয়া।

আর কারো নেই প্রবেশাধিকার
অমূল্য এই ব্যাংকে,
তোমায় পেয়ে ব্যাংকসমেত
আমি এখন রযাং কে।
…………………………………………..

পাল্টে গেছি আমিও

তুমি যখন পাল্টে গেছো
পাল্টে গেছি আমিও,
পাড়ার লোকে বুঝে গেছে
তুমি কেমন দামিও।

কেমন ছিলে আগে তুমি
এখন কেমন আছো?
আমার খেয়াল ভুলে গিয়ে
কার পিছেনে নাচো?
…………………………………………..

কষ্ট সারাক্ষণ

আমার ব্যথা আমিই বুঝি
বুঝে না আর কেউ,
আমার বুকে কষ্ট নদীর
উথাল পাথাল ঢেউ।

কষ্টরা সব মেঘ হয়ে যায়
বৃষ্টি হয়ে ঝরে
ঝুমুর ঝুমুর শব্দ তুলে
বাজে হৃদয় ঘরে।

বেদনা বিধুর এই পৃথিবীর
আসুক যত কষ্ট,
গিন্নি সোনার মধুর কষ্ট
জীবন করে নষ্ট।

হৃদয়টা আজ ভাঙাচোরা
ঘরেই জ্বালাতন,
হাটে কষ্ট, মাঠে কষ্ট
কষ্ট সারাক্ষণ।

আর পারি না কষ্ট নিতে
আর পারি না সইতে,
লজ্জা রানির ভীষণ মানা
এসব কথা কইতে।
…………………………………………..

তুমি আমার দৃষ্টি

সুজন সখি সঙ্গের সাথি
ওগো আমার বৃষ্টি,
তোমায় ছেড়ে কেমনে থাকি
তুমি আমার কৃষ্টি।

তোমায় নিয়ে স্বপ্ন বুনি
তুমি প্রিয় ইষ্টি,
তুমি ছাড়া অন্ধ আমি
তুমি আমার দৃষ্টি।

তোমায় নিয়ে ছড়া লেখি
ছড়া তোমার সৃষ্টি,
তোমার নামের ছড়াগুলো
কী যে দারুন মিষ্টি।

বৃষ্টি আগুন তোমার মুখে
কাব্য কথার সৃষ্টি,
রোদের ঝিলিক নিত্য থাকে
ছন্দ ছড়ার বৃষ্টি।
…………………………………………..

আমি হবো খুনী

তুই যে আমার আঁধার রাতের
হিরের পিদিম বাতি,
তোরে ছাড়া কেমনে কাটাই
দুঃখ ভরা রাতি।

তুই যদি হোস অন্য কারো
আমি হবো খুনি
তোরে নিয়ে স্বর্গে যাবো
তুই তো আমার মুনি।

হৃদয় সারা তোর দখলে
একটুও নয় ফাঁকা,
তোরে ছাড়া ঘুরবে নারে
আমার জীবন চাকা।
…………………………………………..

ভুল বুঝো না

আমি যেন তোমার মাঝে
তুমি হয়ে থাকি,
তোমার সকল ব্যথাগুলো
আমার গায়ে মাখি।

ভুল বুঝো না তুমি আমায়
সুখের দুখের সাথি,
তোমায় ছাড়া কষ্টে কাটে
আমার নিঠুর রাতি।

আর ক’টা দিন সবুর করো
আসবে সুখের দিন,
বুকের সাথে বুক মিশিয়ে
শোধবো সকল ঋণ।
…………………………………………..

ঐ মাঝে সুখ

তোমায় নিয়ে ভাবি আমি
তোমায় নিয়ে খেলি,
তোমায় নিয়ে গল্প লেখি
তোমায় ধরে মেলি।

সব বিলিয়ে সব হারিয়ে
তোমার মাঝে খুঁজি,
তুমি বিনে চাই না কিছু
তুমি আমার পুঁজি।

তোমার মাঝে সুখের নহর
তুমি আমার সুখ,
তোমার প্রেমে আগলে রাখো
আমার যতো দুখ।
…………………………………………..

আমায় এখন কেউ খোঁজে না

ভুলে ভুলে পথ হারিয়ে
ভুল মানুষের গলায় ঝুলে,
সুখের পাখি সব তাড়িয়ে
নিঃস্ব হয়ে যাচ্ছি খুলে।

আমায় এখন কেউ খোঁজে না
অতীত স্মৃতি কেউ বোঝে না।

একলা আমি একলা থাকি
পাঁজর পোড়ার ছবি আঁকি,
নিজের মাঝে নিজকে দেখি
আর সকলে মিথ্যে মেকি।
…………………………………………..

আমায় ছাড়া তুমি যদি

দুঃখে আছি কষ্টে আছি
তবুও আছি বেশ,
তোমায় কেন বুঝতে দেবো
আমার মনের ক্লেশ।

আমায় ছাড়া তুমি যদি
হতে পারো সুখী,
তোমায় ছাড়া আমি কেন
থাকবো এতো দুখি?
…………………………………………..

দুঃখ আমার বিলাস

দুখের বসত শোকের বাড়ি
আমার প্রিয়ঘর,
দুঃখ আমার পরম সাথি
সুখ হয়েছে পর।

দুঃখ আমায় যতন করে
খুব আদরে চুমায়,
রাতেরবেলা জড়িয়ে ধরে
একবালিশে ঘুমায়।

দুঃখ আমার সঙ্গের সাথি
দুঃখ আমার বিলাস,
সুখের পাখি আসবে না তাই
রোজ আমারে কিলাস।