অতটা দূরে নয় আকাশ। কবি সালমান হাবীবের কবিতার বই। পড়ছি আর বিস্মিত হচ্ছি। একজন মানুষ কী করে আকাশকে তার নিজস্ব সম্পদে পরিনত করে তুলতে পারে। একজন কবি কি করে আকাশে উড়ার ক্ষমতা পায় চিলের মতো। কবি সালমান হাবীব একজন প্রেম ও ভালোবাসার কবি। কবিতার পরতে পরতে ছড়িয়ে আছে ভালোবাসা, দুঃখবোধ, দ্রোহ।

সালমান হাবীব একজন প্রকৃতি প্রেমিক, নৈসর্গ বিলাসী কবি। কবি নিজের দুঃখকে প্রকৃতির মাঝে ছড়িয়ে দিয়ে শান্তি পেতে চেয়েছেন। তিনি তাঁর কবিতায় লিখেছেন-
“আকাশকে দূর থেকেই ভালবাসতে হয়
অন্যথায়, কাছে যেতে চাইলে হতাশ হতে হয়”।
সত্যিই মানুষকেও ভালোবেসে কাছে গেলে অনেক সময় হতাশায় পড়তে হয়।

আকাশ প্রেমী কবি সালমান হাবিব তার কবিতায় লিখেছেন-
“আজকাল মেয়েটা নিয়ম করে আকাশ দেখে,
মগ্ন চোখে মুগ্ধতা নিয়ে।
কিন্তু ততদিনে সেই দৃশ্য দেখার মানুষটি
নিজেই আকাশে চলে গেছে!”

কবি তো সেই জন, যিনি নিজের ব্যক্তিগত অনুভূতি গুলোকে অন্যের মত করে প্রকাশ করতে পারে, অথবা অন্যের অনুভূতি গুলোকে নিজের মনে করে কলমের খোঁচায় লিখে রাখতে পারে কাগজে। সালমান হাবীব তার আকাশ দেখা কবিতায় লিখেছেন –
“আমায় ছাড়া ভালোই থেকো
সুখেই থেকো তবে
কষ্ট হলে আকাশ দেখো/দুঃখ যাবে উবে।”

প্রতিশ্রুতি দিয়ে কেউ যখন প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করে তখন সেটা হয় খুবই বেদনার। তিনি প্রতিশ্রুতি কবিতায় লিখেছেন-
“প্রিয়, তুমিহীনা একটা প্রহর
যেন আস্ত একটা জনম কেটে যায়।”

“দুই মিনিট দাড়াও আমি আসছি
আমি সেদিনই বুঝেছি
আসছি বলা মানে আশা নয়, প্রস্থান!”

“তুমি বললে যাবে
আমি বললাম যাই
চোখ থেকে চোখ
সরিয়ে নিতেই দেখি
আমার যাবার কোথাও নাই।”

এই রকম আরও অজস্র সুন্দর সুন্দর বাক্যে পূর্ণ তার অতটা দূরে নয় আকাশ বইটি। আমার বিশ্বাস পাঠকের কাছে বইটি বেশ ভালো লাগবে। কবিতায় গল্প বলতে পছন্দ করেন কবি সালমান হাবীব তার অধিকাংশ কবিতা ছোট একটি গল্প। যে গল্প আমাদের মগজে প্রভাব বিস্তার করে স্থায়ীভাবে আসন গেড়ে নিতে চায়।

প্রিয় পাঠক সালমান হাবীবের এই বইটি প্রকাশিত হয়েছে বাংলার প্রকাশন প্রকাশনী থেকে। ৮০ পৃষ্ঠার বইটির মূল্য রাখা হয়েছে ২০০ টাকা। রকমারি থেকে বইটি সংগ্রহ করতে পারেন আপনারা। কবির জন্য শুভকামনা, বইটির বহুল প্রচার প্রত্যাশা করি।