সোনালি মৌমাছি

স্বপ্নে দেখি-
এক স্বচ্ছ ঝরনা বয়ে যায়
আমার হৃদয়ে
নতুন জন্মের ঝরনা হয়ে
তুমি আসলে।
স্বপ্নে দেখি-
একটি ঝুলেথাকা মৌচাক
আমার হৃদয় জুড়ে খেলা করে।

স্বপ্নে দেখি-
মৌমাছিরা পুরনো ব্যর্থতা নিয়ে
মোম আর মধু তৈরি করে
দেখি একটি জ্বলন্ত সূর্য,
জেগে আছে বুকের গভীরে
সে ছিল জ্বলন্ত বিকিরণ
লাল উনুনের মতো।
হায়! হাতের মুঠোয় দেখি
সোনালি মৌমাছির পটল তোলা।
…………………………………………..

রুপালি রোদের ডায়েরি

রুপালি রোদের ডায়েরি কেড়ে নেয়
বালিকার অগোছালো জীবন
চোখের চঞ্চলতা-
বালিকার হৃদয় থেকে উড়ে যায় প্রজাপতি
থরে থরে সাজায় দৃশ্যশিকারীর সাম্পান।

চলছে কারফিউ-
বালিকার হৃদয়ে আতঙ্কিত জাহাজ
মগ্নতায় ভেসে যায় উপকুলিয় বিলবোর্ড
দশ নম্বর সংকেত ঝড়ের পূর্বাসে

রাতের কাকের মতো হা করে থাকে
গোলকধাধায় ভরা শহর
বালিকা ধপধপে ফুল হয়ে-
পাড়ি দিতে চায় নীলসমুদ্র।।
…………………………………………..

বর্ণবাদী হৃদয়

একটি ভারী হৃদয় এনে দিলো
বেদনার অশ্রু বর্ষণ
নিরুপম সূর্যোদয়ের সময়।

বাদামী-কালো বাচ্চারা স্কুলে যায় অনুশীলনের জন্য
কিন্তু হায়
তাদের চারপাশে রয়েছে চোখের আগ্নেয়াস্ত্র
আঘাতে আঘাতে জরজরিত করে
লাউকচি হৃদয়।

হায়! আমরা প্রত্যাশা করি প্রত্যেকটি বাদামী-কালো শিশুর
আলমারিতে থাকবে মালিন্যর পরিবর্তে ভালোবাসার উপহার
কিন্তু না, তাদের আলমারিতে উপহার নয় যেনো জ্বালাময়ী কয়লা।
…………………………………………..

শশ্মান

এই কালনিন্দ্রা শশ্মানে
একবার দেহান্ত করেও কি সাদ মেটেনি
পুনরায় এসেছো বাতি দিয়ে সজ্জিত
কোভিট ধরা প্রাচীর হয়ে।

কল্পনায় টকটকে লাল হৃদয়
স্পন্দন অচল করে
কি অপরূপ ধ্যান করো তুমি

তুমি সেখানেই আঘাত করো
যেখানে স্বপ্নের বেড়াজালে পাখির মতো
প্রেম ছিলো এক কালে
শশ্মানের মৃতদেহগুলো অপার বেদনায়
পড়ে আছে অসমাস্থলে।
…………………………………………..

নিঃশব্দে নতুন এক দিন

কবিতা তুমি চিরকুটের বিন্যাস
এখনো চোখে পড়ে তোমায়
চিরল পাতায়,
উদাসী দুপুরের সেই গানে
এখনো মনে পড়ে
রহস্যম রাতে তোমার সঙ্গে
দেখেছি অনবৃত্ত চাঁদ!

আপনি কেঁপে উঠেছিলো
লতাগুল্ম জারুলের শাখাগুলো
তোমার মুখে নীলাভ আভা
ছড়িয়ে দিলো লতার দেহ
চোখ বুজলো পাখিরা
আর নিভে গেলো জোছনা ধোয়া নক্ষত্র
স্পর্শে জ্বলে ওঠে নদীর ঢেউ
ছুঁয়ে গেলো অজানা বাতাস
নিঃশব্দে নতুন এক দিন।।
…………………………………………..

নূরানী মুখ

নবী তুমি রহমত
সৃষ্টির মাঝে
চাঁদের মতোন অম্লান তুমি
সৃজনধারা রহম গানে
তোমার আগমনে, নদীকুলকুল
মদিনায় খুশির জোয়ার…

প্রভুর এক পয়গাম নিয়ে এলে তুমি
তুমি এলে শান্তির মেহমান এই বিশ্বধারায়
তুমি অন্ধকারের শিখা
তোমার আলোয় দূরভিত হয় ঘোর অমানিশা।