(১)
তোমার নিজস্ব
সূক্ষ্ম কাঁচের দেয়াল
আমি দেখি না।

(২)
মায়ার বাঁধন
ছিঁড়ে যাওয়ার পর
আবারো মায়া বাড়ে।

(৩)
মায়ের কাঁদন
পাঁজর ভেঙে ওঠে
আমিই শুধু বুঝি না।

(৪)
তোমার মাঝে
আদিম জন্তু হানা দেয়
তুমি চেপে যাও।

(৫)
যতোই হারো
সাধনায় বিশ্বাস থাকলে
জিতবেই তুমি।

(৬)
একটি ঝড়ে
জীবনের সব পুঁজি
বালুর মতো ধসে যায়।

(৭)
শাসকের মুখে
পরার্থের আড়ালে
নিজের কথাই ফোটে।

(৮)
জীবনের সব গান
ফিকে হয়ে যায়
বিদায়ের বেলায়।

(৯)
তোমার চাপা বারুদে
অনুকূল স্রোতে
ফের আগুন জ্বলে।

(১০)
গহীনের শব্দ
ঝরে যেতে যেতেও
গহীনেই থেমে রয়।