মনোনীত যুবরাজ

যা বলতে চাই আসলে তা সম্ভব নয়
মনের কথাটি প্রকাশের ভাষা পেলে,
তোমাদের কাছে আদৌ বিশ্বাসযোগ্য হবে না।
আসলে যা বোঝাতে চাই, তা অসম্ভব
তোমাদের কাছে হবে হাস্যকর, নিরেট বোকামি।
জানাতে চাই যা তাও জানতে চাইবে না-
আমিতো কোন অবতার নই!
আমার কথায় কী আসে যায়?
বলার কথাটি যদি বলা যেত, যদি বোঝানো যেত সব
মৃত্যুতোরণ থেকে ফুল খুলতে খুলতে উঠে দাঁড়াতে-
ধ্বংসকে পাশ কাটিয়ে সমগ্র বিশ্বকে ছু্ড়ে দিতে
একফালি সোনালি রোদ্দুর। অথচ,
কত শত মৃত্যু দেখার পরও,
হতে চাও মনোনীত যুবরাজ।
…………………………………………..

জীবন ও বিবেকের দায়

আমাদের চারপাশের বাতাসে বৃষ্টির মত মৃত আত্মারা নামছে।
বিগত সূর্য থেকে উৎসারিত যত আলোর কনা সব ফিরে ফিরে যাচ্ছে।
শহরটা ক্রমশই ডুবে যাচ্ছে অন্ধকারে।
স্বপ্নরা বিষে বিষে নীল।স্বাচ্ছন্দ্যে হেঁটে চলে যেতে পারো নরকবাসে।

অস্থিতে পাকাপোক্ত বাসা বেঁধেছে খুন!
দায় নিবে? একদম নয়।
তারচেয়ে ভালো কফির ধোঁয়ায় উড়িয়ে দাও,
মন ও মানবিকতা।

জীবন এবং বিবেকের দায় কে নিতে চায়?
…………………………………………..

অদ্ভুতুড়ে বায়না

পালাতে ইচ্ছে করেনি কখনও
সটান খোলা ছিল দরজা।
বরইফুলের চাঁপা গন্ধ নিঃশ্বাস ছুঁয়ে যেতেই
অদ্ভুত যত বায়নায় পরাস্ত হয় মন
অভিমানটাও আকাশ ছুঁতে চায়।

আজ দরজায় শক্ত লোহার তালা।
চারপাশের খাঁচাটা কটমট করে চোখ রাঙায়!

নীলপাখিটার উদাস দৃষ্টিতে জড়ানো ভোরের মায়া।
…………………………………………..

ইচ্ছেপাখির সহযাত্রী তুমি

ঝিঁঝিঁ ডাকা নির্জনতার কাছে
নিজেকে সমর্পণ করিনি কখনও
অথচ বুকের ভিতরে পদচিহ্ন গুনে গুনে –
তোমার মায়া দৃষ্টি ছুঁয়ে গেলো চাঁদের শরীর।
মরু পাহাড়ের গা বেয়ে,
জলসিঁড়ি নেমে গেলো শস্যক্ষেতে।
গোলাপ নয়, তোমার হাতে শিশুতোষ উপহার।
প্রেমাবেগ নয়, ঠোঁটে সরল মিষ্টি হাসি।
কথোপকথন, লাজুক অধোবদনের সেতু পেরিয়ে
মুঠো আঁকড়ে বিস্ময় বিমোহিত ডানা মেলে ইচ্ছেপাখি; তুমি তার সহযাত্রী।
তারপর মাদলে বাজে মৃদু সুর!
বাতাস স্তব্ধ হল তোমার সূক্ষ্ম বুদ্ধিতে
শরীর ও হৃদয়ের উচ্ছ্বাস বুঝে নেয়ার কৌশলে।
…………………………………………..

জীবনের ধরণ-ধারণ

মার্জিত সকাল এবং দুপুর কাটিয়ে,
শান্তিতে শুয়ে আছে বিকেল।
গলিতে সন্ধ্যে নেমে এলে
জানালায় উঁকি দেয় গেরুয়া চোখ।
যে চোখ ভালোবাসতো উঁচু পাহাড় আর মেঘ

আজ তার চিবুক ছুঁয়ে নরম শীতের আমেজ।

ব্যালকনির এককোণে পড়ে থাকে ধবল কুঁয়াশা
ভাতের থালায় প্রশ্ন লুকিয়ে রেখে মেতে উঠি
আদরে বিলি কেটে দেই উলেন শালে।
দোতারার আলিঙ্গনে বাজাই সুর
তৃপ্তির সাতপাকে বাঁধি বৃষ্টিপ্রহর।

ভুলচুক ছেটে ফেলে জীবন মাপি-
সিদ্ধান্ত নেই পাশাপাশি হাঁটার।

এইতো আমাদের প্রেম, জীবনের ধরণ-ধারণ।