হৃদয়জোড়া বাংলা আমার

বৃষ্টি ভেজা শারদ প্রাতে শিশির পড়ে কাশফুলে
ভিজে ভিজে রাঙা হয় সাদা বরফে
বাতাসে দোলে ভাদ্র বিহান
দেখে জুড়িয়ে যায় নয়ন দুটি।

আমার বাংলার গাছে গাছে
নানাজাতের পাখি বসে
কিচিরমিচির ডাকে কুহুকুহু ডাকে
পাখির গুঞ্জনে মুখরিত হয় বাংলা।

পাখিরা মুক্তডানা মেলে আকাশে উড়ে
পুকুর জলে কলমিলতায় ফুল ফোটে
হাসগুলো ভেসে বেড়ায় মনের সুখে
শাপলা আর পদ্ম ঢেউ তুলে।

ঘাসফুলের গালিচা ঘেরা
অপরূপ পথ প্রান্তর
যত দূরেই থাকি মা গো
তোমার জন্যে মন কাঁদে অন্তর কাঁদে।।
…………………………………………..

কোথায় হারিয়ে গেলো

জন্মভূমি থেকে বহুদূরে থাকি আমি
বরফের দেশে বসবাস আমার
তবু গভীর রাতে ঘুমিয়ে গেলে কানে ভাসে
শেয়ালের হুক্কাহুয়া।

দূর হতে ভেসে আসে
রাত জাগা পাখির কলগান
ব্যাকুল মন আমার মুহুর্তে কেঁদে উঠে প্রবাসী প্রাণ।

মনে পড়ে সেই নদীর তীরে
ফেলে আসা স্মৃতি
যেখানে আমার শৈশব
আনন্দের চড়ুইভাতি ঘুমিয়ে আছে।

সন্ধ্যায় তারা ভরা আকাশের নিচে
শুনেছি যে কতো গল্প কল্পনায় মিশে
কানে বাজে দাদুর সেই দুয়োরানী সুয়োরাণীর গল্প
মন মাতানো সেই দিন
আজ কোথায় হারিয়ে গেলো।

বাংলা রত্নভান্ডার করেছো আমায় ঋণী
কতো দিন হাঁটি না শিশির ভেজা দুর্বায়
চোখে পড়েনা পাখির ঝাঁক গোধূলি বেলায়।

নিস্তব্ধ পাথরের অন্তরালে বীজবুণে
আমার সোনাফলা মাটির ঘ্রাণে!
বুকে অমলিন আমার শ্যামল বাংলা
কখনো তো তারে যায় না ভোলা।।
…………………………………………..

আমার মাতৃভাষা

সরলা বাংলা আমার গর্বিত মা
সবুজ শ্যামল শস্য ঘেরা
করেছো উজ্জ্বল এই ধরণী।

ভাষা আমার মধুর বাংলা
পৃথিবীর শ্রেষ্ঠতম ভাষা
কোথাও খুঁজে কেউ পাবেনা
সুরেলা আমার মায়ের ভাষা।

শত শত দেশ ঘুরেও পাইনি
বাংলার মতো শান্তিময়
হৃদয় আমার জুড়ায় কেবল
বাঁশির মতো মোহনীয় আমার মাতৃভাষা।।
…………………………………………..

অজানা গান

কত স্বপ্ন ফুলের মতো ঝরে যায়
কত হাত ধরে রেখেও ছেড়ে দেয়
এই হাত এ-ই স্বপ্ন একদিন একা হয়
হতে হয়।

জীবন ও নদী এভাবেই এক হয়
একেবেঁকে চলে যায় কতট পথ
জীবন জানেনা নদীর শেষ কোথায়
নদীও জানেনা জীবনের স্রোত
স্বপ্ন একদিন ইতি টানে
অজানা গানে।।
…………………………………………..

ভালোবাসা

ক্লান্তির পর যখন চোখ বুঁজি
তোমাকে দেখি
নিরবে ভাসে জল
নদী হয় নিরবধি।

জীবনের সব পাখি দূরে চলে যায়
তখন তুমি আসো
কোন ক্লান্তি নাই
পাশে বসো
ভালোবাসো খুব ভালোবাসো।

আমি বলি কি দেবো তোমায়
এখন তো আমার বিকেল বেলা
সন্ধ্যা হয় হয়
তুমি বলো মন থেকে একটি হাসি দাও ।।
…………………………………………..

বেলা শেষে

বেলা শেষে দেখো এসে
বসে আছি চেনা সেই নদীর তীরে
সন্ধ্যা বাতাসে মিশে গেছি হয়তো
বাতাসের মিতালীতে।
বেলা শেষে খুঁজে নিও
কে ভালো কে মন্দ
এখনতো শত সুহৃদের বেড়াজালে।
কত মৌমাছি আর বটগাছ
চারপাশে রোজ রোজ হাসে।
বেলা শেষে নিয়তির কপালে
দেখো ভালোবাসার কালো টিপ
নির্ঝরে কাঁদে।।
…………………………………………..

দূরে থাকাই দূরত্ব নয়

দূরে থাকাই দূরত্ব নয়
দেখো কত কাছে আছি
মন মননে
চোখ বুঁজো
প্রেমের বন্ধনে।
দূরে থাকাই দূরত্ব নয়
ক্ষণে ক্ষণে কত পাশে থাকা
স্বয়নে স্বপনে মনে রাখ
একি কম কিসে হয়।
…………………………………………..

কেমন করে সইবো

এতো ভালোবাসো কেন আমায়
যদি কোনদিন ভুলে যাও
চলে যাও দূর থেকে বহু দূরে
কেমন করে সইবো।
এতো ভালোবাসো কেন আমায়
যদি কখনো পাহাড়ের মতো পাথর হও
মেঘের নীলে হারাও
কেমন করে সইবো।
এতো ভালোবাসো কেন আমায়
যদি হঠাৎ করে বাজাও বিদায়ের সুর
কাক ডাকা ভোরে না পাই পাশে
প্রিয় গোলাপ তোমায়
কেমন করে সইবো।
এতো ভালোবাসো কেন আমায়
যদি কখনো দেয়ালের প্রলেপে
পথের মানচিত্রে ফেলে যাও
নিরালার দরবারে
পাখিরা হাসে ফুলেরা উপহাস করে
তোমার শূণ্যতায়
কেমন করে সইবো।।
…………………………………………..

মানবতা

মানবতা নিজেই হাসে
নিজের ছবি দেখে
মনের মাঝে দেয়াল কাঁটা
চক্রবেধে থাকে।
কাঁদছে মানুষ বিশ্বজুড়ে
কোথায় মানবতা,
যাচ্ছে চলে স্বার্থ বিলাস
বলছেনাতো কথা।
একটু স্বার্থে দেখা যায়
বন্ধুত্বের ত্বক
আলগা মানবতায় মাতোয়ারা,
রোজ রোজ দংশন করে
হিংস্র জানোয়ার
জ্বলে পুড়ে অসহায় হয় দিশেহারা।
কেমন মানুষ তুমি
কেমন মানুষ
আগে হও নিজে ঠিক
পাবে ফিরে হুষ।।
…………………………………………..

এখানেই সুখ

দিন দিন ভালোরা কালো হবে
আর কালোরা ভালো হবে
নষ্ট তোমার মালায় বাসী গন্ধ।
আলোতে ভালো থাকো
বাহ-বা জয়ধ্বনি –
তোমাকে নিয়ে নাচে
দেশ সমাজ জাতি
তোমাকে নিয়ে জ্বালায়
ছলনার বাতি।
দিন দিন এমনি করে শেষ হবে
সুগন্ধি সুবাস
অন্ধকার এসে বলবে স্বাগতম
তুমিও আলো ভেবেই বলবে
এখানেই ভালোবাসা
এখানেই সুখ।।
…………………………………………..

অশ্রুসিক্ত মাঠ

তুমি আসবে
তাই বাতাসেরা ঝিরি ঝিরি বইছে
গাছেরসবুজ পাতারা
আনন্দে মাতাল।
তুমি আসবে
তাই অপেক্ষার বিনীত পাখি
আঁখি মেলে তাকিয়ে আছে।
চারদিকে দূষিত ধোয়া
বিচ্ছেদি বিরহী সুর
ভোরের কানে দ্রোহের ঢেউ ডাকছে।

তুমি আসবে
তাই জলেরা নিরবে কানাকানি রত
মাছেদের তাক করা চাহনি
তোমার প্রতীক্ষায়।
তুমি আসো
মুক্ত করো অন্যায়
শান্তির সু বাতাসে
উড়াও নিশান।
তুমি আসবে
আলোর অপেক্ষায় সমগ্র জনতা
হৃদয়াঙ্গম প্রেমে অশ্রুসিক্ত মাঠ।

তোমার প্রীতি
ফাহমিদা ইয়াসমিন
তোমার শূণ্যতায় নিরব নিস্তব্ধ মন
স্মৃতির দহনে দেখি কত কি
যেখানে থাকো ভালো থেকো
মন থেকে এই আর্তি।
স্বপ্নের মতো জীবনের কারুকাজ
ভেঙ্গে যায় এমন করে,
হায় জীবন নিয়তীর ক্ষণ
চলে কতইনা ঝড়ে।
মানুষ থাকেনা থাকে তার স্মৃতি
কাব্যমালায় জেগে থাক তোমার প্রীতি।।