ধান কাটা

এমপি সাবের ফটো সেশন
কৃষক কাঁপে ভয়ে
ক্ষেতের ধান ক্ষেতেই যেনো
যুদ্ধে যাবে ট্রয়ে।

ধান কাটিয়া দেশটা তারা
করবে তবে জয়
পাতি নেতা ক্ষেতে ভরা
এমন কেনো হয়।

করোনার চেয়ে করুন দেখায়
ছবি তুলার দৃশ্য
কাচা ধান কেটেই তবে
জয় করিবে বিশ্ব।

সামাজিক দূরত্বও নেই
কীসের লগডাউন
এখন দেখি তারা চালায়
বৈশাখী শো ডাউন।

তারাই দেশের আমলা ওমলা
ইমেজ নষ্ট করে
ক্ষেতের ধান ক্ষেতেই আছে
কৃষক কেঁদে মরে।
……………………………………………

রিবার কোয়ারেন্টাইন

করোনার এই আকালেও
নদীর কাছে আসি
শীতলক্ষ্যা নদী আছে
আমার পাশাপাশি।

যখন ছিলে শীতলতায়
শীতল ছিলো জল
বর্ষা কালে যৌবন এলে
করতে যে টলমল।

দুকূল ছিলো উপচানো আর
স্টিমার চলতো ঝাঁকে
বৈশাখ এলে বসতো মেলা
ঘোড়াশালের ঘাটে।

তোমার এমন শীতলতার
জল গেলো সব কই
ঐপারের ঐ জেলারও
করে না হইচই।

ঘাটগুলো সব নিরব এখন
নাও থাকে না ঘাটে
মাঝিরা সব রিক্সা চালায়
দূরে গন্জের হাটে।

জাল ফেলে আর জেলেরাও
পায় না বোয়াল মাছ
চিমনিওয়ালা কারখানারা
করছে এখন রাজ।

শীতলতার নদী আমার
দখল করলে যারা
প্রকৃতির এই বিরুপ আবাশ
পাচ্ছো কী আজ তারা।
……………………………………………

কাল বৈশাখীর কালে

কাল বৈশাখীর কালে এবার
বসলো না আর মেলা
ঘরের ভেতর বন্দি মানুষ
যাচ্ছে কেটে বেলা।

চারিদিকে হাহাকার আর
কান্নাকাটির ঢেউ
ক্ষেতের তরমুর ক্ষেতেই আছে
দেখার নেইতো কেউ।

দুশ্চিন্তায় দেশের কৃষক
আম যাবে না ইউরোপে
ঝণ খেলাপির ঝালে তারা
বাঁচবে তবে কী রুপে।

মহামারী করোনা ‘রে
বলছি এবার থাম।
গরীব মানুষ বাঁচবে না আর
ভুলে কাজ কাম।
……………………………………………

লগডাউনে স্টেশন

আমিই কেবল বসে থাকি
অপেক্ষায় অধিক
লগডাউনে ট্রেন চলে না
নিরব চারিদিক।

ফুটপাতের ঐ দোকানগুলো
কেউ খোলে না আর
মহামারীর এই আকালে
শুধুই হাহাকার।

ওব্রার ব্রীজে কেউ হাঁটে না
স্টেশনে নেই গাড়ি
ট্রেনের ছাদে কেউ উঠে না
কেউ ফিরে না বাড়ি।

নীল আকাশে মেঘের খেলা
মেঘ উড়ে যায় দূরে
যখন তখন তুফান আসে
আমার হৃদয় পুড়ে।

আশায় আশায় এলোমেলো
মনটা আমার দোলে
আবার কবে আসবে মানুষ
বসবে দোকান খোলে।
……………………………………………

করোনা

এবার কেমন আকাল এলো
কঠিন মহামারী
হাতে হাত থাকছে না আর
রাস্তায়ও নেই গাড়ি।

করোনার এই অসময়ে
হৃদয় ভেঙে চূড়ে
ঘর বন্দি থাকছে মানুষ
একটু দূরে দূরে।

সর্দি হলে এখন সবাই
মুখ লুকিয়ে কাশে
আপন জনও রোগী হলে
কেউ থাকে না পাশে!
……………………………………………

লগডাউন

দেশ বিদেশে চলছে এখন
কঠিন লগডাউন
বাসায় বসে করছে সবাই
রোগীদের ক্রাউন।

সামাজিক দূরত্বে থাকো
সমাজ থেকে দূরে
করোনার এই অসময়ে
হৃদয় ভেঙে চূড়ে।

লগডাউনে বাংলাদেশের
গরীব মরছে ধুকে
পুঁজিপতি মালিক শ্রেণি
তারাও নেই সুখে।

সরকারী ত্রাণ হচ্ছে চুরি
দেশের করুন হাল
প্রতিদিনই নিউজ হচ্ছে
তুমুল ফালা ফাল।

আজকে আবার নিউজ হলো
খাদ্যের গাড়িত হামলা
তেল ডাল আর চাল চোরেরা
এবার তোরা সামলা।
……………………………………………

লগডাউনের নদী

সঙ্গীবিহীন থাকে মানুষ
কেউ করে না দেখা
লগডাউনের বিকেল কাটে
নদীর তীরে একা।

ছিপ নৌকা নিয়ে আসে
মাছ ধরিতে জেলে
আমি কেবল তাকিয়ে থাকি
দিগন্তে চোখ মেলে।

সূর্যটা ঠিক কুমার পাড়ায়
পশ্চিম দিকে ডুবে
সাদা বকটা ক্লান্তি নিয়ে
যায় হারিয়ে পুবে

সন্ধ্যা আসে শুরু হয়
ঝিঝি পোকার ডাক
গাছের ডালে একা বসে
দূর শহরে কাক।

যখন তখন তুফান আসে
বৃষ্টি পড়ে জলে
মন পাখিটা লুকিয়ে থাকে
গহীন নদীর তলে।
……………………………………………

ত্রাণ চোর

চেয়ারম্যান আর মেম্বার, মেয়র
তারাই বাজায় তুরি!
জেলায় জেলায় সরকারি চাল
করছে কারা চুরি?

এসব নিউজ দেখে শুনে
বেদম চুলচুলায়!
জনগনের ত্রাণের চাল
যাচ্ছে কার চুলায়?

দেশের এই আকালে আজ
সবুজ কালির ক্ষরা
জননেত্রীর নোটবুক এখন
লাল কালিতে ভরা!

জামালপুরে ত্রাণের গাড়িত
জনগনের হামলা
তেল ডাল আর চাল চোরেরা
এবার তোরা সামলা!