অপূর্ণ কবি

কবিতার উৎসস্থলে এসেই
কেন যেনো থেমে যাই
আলোর আকুলতা নিয়ে ফিরে যাই তার কাছে
শুধু তার কবিতা শুনি
নিবিড় গাঁথুনি অপূর্ব ছন্দ লয়ে মিশে একাকার
বাণী নেই ভার আছে।
গীতিময় স্রোতধারা আছে
আমার না বলা ভাবের ঘন অন্ধকারে
তাঁর ভাব তাঁর সুর অপরূপ প্রভাতের মতো
সেই আলোর ধারায় একসাথে ভাসি আমি
এ এক মহাগ্রন্থ নতুন সংস্করণের
প্রথম দিনেই যেমন করে নিঃশেষ হয়ে যায়
যেখানে আমার অস্তিত্ব অমার অনুভব
কেন জানি বারবার মনে হয়
সেই মহাগ্রন্থের একটি শব্দ কিংবা বিন্দু
হয়তো তাও নয়।তবু ও ভালো লাগে
আমার কবিতার উৎসস্থলের
কাছে আসতে পেরেছি বলে।
……………………………………………

অফুরান কামনা

জীবনের রথে কতো জনপদে
ঘুরেছি আমি,কাটিয়েছি মধু যামিনী।
কিশোরীর সলাজ দেহের প্রতিটি ভাঁজে
খুঁজেছি চিরযৌবনা “রমার”
নিটোল দেহবল্লবীর আঁকে বাঁকে।
যুবতীর উদাম গায়ে, নিষিদ্ধ অন্ধকার অতলে,
তবু মনে হয়, যা চেয়েছি আজও পাইনি।
জীবনের রথে কতো জনপদে
ঘুরেছি আমি, কতো গুনী জ্ঞানী জনের
পরম সান্নিধ্যে কাটিয়েছি কত দিবস রজনী
উপভোগ করেছি উজ্জ্বল আলোকময় সেই সঙ্গসূধা,
ঘুরেছি আমি কাঙ্খিত স্বার্থকতার সব জানা পথে
তবু মনে হয়, যা চেয়েছি আজও পায়নি।
জীবনের রথে কতো জনপদে
ঘুরেছি আমি ।
কল্পোলোকের কতো গল্প কাহিনী
শুনেছি আমি একাগ্র মনে।
তবু মনে হয়, যা চেয়েছি আজও পাইনি।
……………………………………………

স্বপ্ন

আমার স্বপ্নগুলো
কেনো সত্যি হয়না?
আমার ভালোবাসা
কেনো ভাষা পায়না?
আমার স্বপ্নগুলো
কেনো সত্যি হয়না?
আমার অশা গুলো অসহায়
ভেসে যায় নিরুপায়
আমার স্বপ্নে আসো
কেনো বাসর সাজিয়ে?
কেনো আবার চলে যাও
ইয়ন জলে ভাসিয়ে?
স্বপ্নের সেই ললনা
কোথায় পাই বলোনা।
তাকে বিনা এ জীবন
এনে হয় শুধু ছলনা।
আমার স্বপ্নগুলো
কেনো সত্যি হয়না?
……………………………………………

প্রতিদান

কি হবে ঐ নীড়ে ফিরে গিয়ে?
যদি না তুমি সাথে থাকো
কি হবে কপালে টিপ দিয়ে?
যদি না তুমি মনে রাখো।
কি হবে খোঁপায় ফুল সাজিয়ে?
যদি না তুমি চেয়ে চেয়ে দেখো।
কি হবে চোখে কাজল পরিয়ে?
যদি না তুমি নয়নে নয়ন রাখো।
কি হবে মনের মাঝে আবীর ছড়িয়ে?
যদি না সে মাধুরী তুমি মনে মাখো।
কি হবে প্রেমের কবিতা পাঠিয়ে?
যদি না প্রতিদানে তুমি কিছু লিখো।
……………………………………………

বড় দা

বড় দা তোমার সবকিছু আমার ভালো লাগে
শুধু ঐ আলসেমিটা ছাড়া।
ভালো লাগে তুমি যখন
গলদা চিংড়ী মার্কা ঐ মন্ত্রী গুলোর দিকে
তাকিয়ে তাকিয়ে হাসো।
ভালো লাগে পাশে বসে ,
ভেক ধরা সব নেতাদের বক্তৃতা শুনে আমাকে
চিমটি কাটো ,আর কাশো
ভালো লাগে সুরের মাঝে যখন তুমি
বেসুরো গান গাও।
ভালো লাগে যখন তুমি
এক চিলিমেই মাতাল হয়ে যাও
বড় দা তোমার সবকিছু আমার ভালো লাগে
শুধু ঐ আলসেমিটা ছাড়া।
ভালো লাগে তুমি যখন
দিলশাদ বেগমের চুলের খোঁপায় ফুল গুঁজো।
ভালো লাগে তুমি যখন শুকনো কথার খই ভাজো।
ভালো লাগে তুমি যখন সং সাজো
ভালো লাগে তুমি যখন সব দেখেও অন্ধ সাজো।
……………………………………………

ময়না পাখি

আমার একটা ময়না আছে
রেখেছি যতন করে,তোমাদের দেবোনা।
মনেতে এত সুখ, আর বুঝি সয়না।
নানান লোকের নানান কথায়
শরমে সংকোচে মরে যাই
ময়না পাখির গানে গানে
সব ব্যথা ভুলে যাই।
আমার একটা ময়না আছে
কেন আমাকে ঈর্ষা করো?
শুধু শুধু প্রতি পদে কথা ধরো।
তোমাদের পাখিগুলো,উড়িয়ে দিলে
আমি কি তাতে তাকাই গো?
আমার একটা ময়না আছে
ময়না আমার বেজায় অবুঝ
বড় অসহায়!
বুকের মাঝে ঠোঁট রেখে
অধীর হৃদয় ছিঁড়ে যায়।
তোমরা যত মন্দ বলো
ময়না আমি দেবোনা।
মনেতে এত সুখ, আর বুঝি সয়না
……………………………………………

মল্লিকা

মল্লিকা তো চলেই গেছে
আবার কেনো ডাকলো?
আমিওতো হারিয়ে গেছি
স্মৃতি গুলোই থাকলো।
পোড়া মনে আবার কিগো
প্রজাপতি বসবে?
অতীতের কান্না কিগো
শিশির হয়ে হাসবে?

মল্লিকা তো চলেই গেছে
আবার কেনো ডাকলো?
আমিওতো হারিয়ে গেছি
স্মৃতি গুলোই থাকলো।
সেদিনই তো তোমার ছিলেম
ভালোবাসা তো দিলেনা
ভ্রমর তো কাছেই ছিলো
ফুলমালা তো পরালে না ।

মল্লিকা তো চলেই গেছে
আবার কেনো ডাকলো?
আমিওতো হারিয়ে গেছি
স্মৃতিগুলোই থাকলো।
কতো শুরু হারিয়ে গেছে
কতো ফুল তো ঝরে গেছে
কেউ তো তার খোঁজ রাখেনা।
তাইতো তোমাকে মিনতি করি
অমন করে আর ড়েকোনা।
মল্লিকা তো চলেই গেছে
আবার কেনো ডাকলো?
……………………………………………

শেষ আশা

একদিন সরার মত মায়াজাল ছিঁড়ে
তোমাতে হব বিলীন,
অদৃশ্য থেকে দৃশ্যমান হবে
অপলক দেখব তোমাকে,
যদি থাকে আমার কপাল লিখন।
দয়াময়! কেবলই তোমার দয়ায়
দিনক্ষণ জানিনা,কখন হবে সে যাত্রা?
গন্তব্য তোমার কাছে,
লাল- নীল দুটি পথ
কোন পথে যাব আমি?
প্রহরী বলে দেবে!
সীমাহীন আশা নিয়ে অপেক্ষায় থাকব আমি,
শুধু এক অমোঘ সম্ভাষণের আশায়।
“আপনার প্রতি শান্তি বর্ষিত হোক।”
……………………………………………

শান্তি

আমার শান্তির নদী
ধীরে ব’য়ে যাও
সাগর হৃদয় গহিনে হারাও
অশান্ত ঢেউ না তুলে
নিস্তরঙ্গ বয়ে যাও
আমার শান্তির পাখি
পিউ পিউ ডাকো
উড়ে চলে যেওনা।
আমার অবুঝ প্রিয়া
ঘরে ফিরে যাও,
আমার নীড় ভেঙ্গে যেওনা
তোমার আমার স্বস্তির এ নীড়
ভেঙ্গে গেলে ভাঙ্গবে আকাশ
সূর্য,চন্দ্র,তারা। শুধু রবে
তোমার আমার জীবনের কালো মেঘ
আকাশ ঝরা অবিরাম বৃষ্টির
মতো অনন্ত কান্না।