আমি

আমি চিলেকোঠা ঘরে থাকি।
আমি রূপকথা পাড়া আঁকি।

আমি ঘাসফুল, আমি তারা।
আমি চারাগাছ, আপনারা-

আমি একরাশ ভালোবাসা।
আমি কাছে এসো প্রিয় ভাষা।

আমি ভাষাপথ বুকে জুড়ি।
আমি রাঙামাসি, আমি ঘুড়ি।

আমি একরোখা জেদি ঘোড়া।
আমি আলো-আঁধারিতে মোড়া।

আমি কাঁচপোকা জুঁই নদী
আমি মাছরাঙা, কেউ যদি-

আমি জলপরী, নাচ শেখো।
আমি ভাঙাতরী, ভালো থেকো।

আমি চিঠি ঘর, চিঠি, চিঠি-
আমি প্রজাপতি, গিরগিটি।

আমি হই হই ছেলে বেলা।
আমি লুকোচুরি,লুডো খেলা।

আমি আয় আয় হাঁসবাড়ী।
আমি এই ভাব, এই আড়ি।

আমি ঘাসফুল, আমি তারা।
আমি চারাগাছ, আপনারা-
…………………………………………..

উপহার

ভাষা বুক থেকে বুকে ওড়ে-
ভাষা জেগে ওঠে ধান ভোরে।

ভোরে আঁকা বাঁকা পথ ছোটে-
ভোরে পাখিদের গান ফোটে।

ফোটে নদী নদী ঢেউ গুলো-
ফোটে আকাশের নীল ধুলো।

ধুলো সারি সারি গাছ আঁকে-
ধুলো রাজা বলে কাছে ডাকে।

ডাকে পারিজাত মন, পারি-
ডাকে মাছরাঙা আঁকা বাড়ি।

বাড়ি সারাদিন মাতে কাজে-
বাড়ি আলপনা দিয়ে নাচে।

নাচে হুসপাখি, নাচে রবি।
নাচে গানপরী, নাচে কবি।

কবি ঘেমে ওঠে তবু চলে-
কবি ঢেউ ছুঁয়ে ছুঁয়ে বলে!

বলে আহা আজ আমি কেযে-
বলে ভাষাটাকে ঘষে মেজে।

দেবো উপহার কাকে? এসো।
দেবো তোমাকেই। ভালো বেসো।
…………………………………………..

আমি জেগে দেখি

আকাশের বোন নীল ঢেলে বলে
সামনে কে ?
দোপাটির চারা বেড়ে বেড়ে জলে
নাম লেখে !

আকাশের ভাই হুস্ করে যায়
হাঁস এঁকে !
পাহাড়ের চূড়ো সেই চিঠি পায়
ঘাস থেকে !

চারিদিকে মায়া, হও তার মানে
চুপ যদি !
জলছবি আঁকে কবিতায়, গানে
রূপ নদী !

ডিঙি গুলি ভাসে সোনা নদীটার
কূল ধরে !
আমি জেগে দেখি রামধনু হার
ফুল ভোরে !
…………………………………………..

সাথী

পাগল ছেলে ! শোনায় কেরে
একলা নাকি তুই ?
আঁধার ঘরে কাঁদিস বসে–
আয়না তোকে ছুঁই !

গেছিস বুঝি পাথর হয়ে,
নেইকি মনে বল ?
ছোটার তেজি সাহস নিয়ে
সামনে হাঁটি চল !

কাঁসাই আছে, তিতাস আছে ,
মেঘনা আছে আর;
বাঁধার পাহাড় থাকনা যতো
থাকনা যতো ভার !

আঁধার কেটে দু দিন বাদে
উঠবে নেচে বুক !
বিজয় মালা সবাই দেবে
দেখবি কতো সুখ !

এই ছেলেটি আয়না কাছে
আয়না সাথী হই !
এইনে হাতে ছড়ার দেশের
সাতটা খুশির বই !
…………………………………………..

তিন জোড়া বক

শুধু করে খাই খাই
এটা চাই সেটা চাই
নাম তার যেনো ভাই
সিরাজুল হক !

গান গায় রাতদিন
কাঠে মারে আলপিন
খায় নেচে ধিন ধিন
তেতুলের টক !!

গোফ জোড়া খুলে রাখে
সারা দেহে কাদা মাখে
যদি নাকি হাতে থাকে
এক জোড়া চক !

চক দুটি হাতে ধরে
একে ফেলে হুশ করে
নিল আকাশেতে ওড়ে
তিন জোড়া বক !!
…………………………………………..

খুশির ছবি

চাঁদে হাটি মাটি ছুঁয়ে
মোনালিসা ছুঁয়ে ছুঁয়ে
ছাপানো রঙীন শাড়ি
দুলছে !

কাকে ডাকি, কাকে ডাকি ?
উড়ে উড়ে কত পাখি
আকাশে মেঘর বাড়ি
খুলছে !

ছোট ছোট বাড়ি গুলো
আহা যেন প্যাঁজা তুলো
বাতাসে রোদের গুঁড়ো
ভাসছে !

আলো, আলো, আলো মেখে
পটে যেন ছবি এঁকে
খুশিতে বরফ বুড়ো
হাসছে !
…………………………………………..

ফুল হয়ে যাই

ঝরনা পাতায় রঙের বাড়ি
দু-একটা রঙ তাই কুড়ালাম।
কেউ বা শালিক কেউ বা ফিঙে
এই নিয়ে এক রূপকথা গ্রাম।

পাহাড় ছুঁয়ে শীতল হাওয়ায়
কোলাজ আঁকে নীল দুটি চোখ।
পাতায় পাতায় পথের মিছিল-
কেউ বা দোয়েল কেউ বা চাতক।

ঢেউ বয়ে যায় ঘাসের ডগায়-
নাম লেখে এক ফুল ঘোড়া তার।
বাউরি বাতাস আপন মনে
সুর বোনে রোজ চুমকি পাতার।

মেঘনা মেঘের হাতছানিতে
অনুভূতির বীজ ওড়ে তাই
অলীক ভূবন কেবল ভাবে
মাঠ পেরিয়ে ফুল হয়ে যাই।
…………………………………………..

শ্রীমান টেঁপু

দোয়েল, ফিঙে
সবাই ভালো !
গরুর শিঙে
চাঁদের আলো !!

মাটির বাড়ি,
কাঠের ঘোড়া !
টিনের গাড়ি,
বেতের মোড়া !!

পোলাও, পুরি
পায়েস, রুটি !
বাদাম, মুড়ি,
গাজর, ফুটি !!

ডাকাত রে রে —
পাতার ভেঁপু !
বাজায় কেরে ?
শ্রীমান টেঁপু !!
…………………………………………..

ইচ্ছে

পাখি কারা যেন বলে গেছে-
পাখি তারাপথ নেচে নেচে।

পাখি জল পড়ে, পাতা নড়ে-
পাখি অবিরত ছবি ঘরে !

পাখি জলছবি আঁকা বাড়ি।
পাখি ওড়ে চাঁদ,ধুয়ো, জারি।

পাখি ঘুম ডুবে সারা পাড়া-
পাখি আমি আজ দিশে হারা !

পাখি দিশাহীন থাকি চেয়ে !
পাখি নাচে এক গান মেয়ে।

পাখি কত ঋন থাকে বাকি-
পাখি এক মনে ভাষা আঁকি।

পাখি জল পড়ে, পাতা নড়ে-
পাখি অবিরত ছবি ঘরে।

পাখি ছবি গুলো ধরে রাখি।
পাখি আমি নাকি, আমি নাকি,

পাখি বলে দেনা কিযে আমি।
পাখি মেঘ হলে ফুলে নামি।
…………………………………………..

মনের ভুল

ঘাগট, কাঁসাই, কুলিক, খোড় !
কোথায় থাকিস,কি নাম তোর ?

দোয়েল, তিতির,শালিক, বক !
আলাপ করাই আমার শখ !!

টেবিল, পিঁড়িম, চেয়ার খাট !
আমার পকেট গড়ের মাঠ !!

শিমুল, পলাশ, টগর, জুঁই !
হাজার ভুতের চরণ ছুঁই !!

নোলক, নুপুর, কাঁকন, দুল !
কোথায় শ্রীভুত ? মনের ভুল !!
…………………………………………..

বন্ধু মেঘের দেশ

চুমকি পাতায় নাম লিখেছে বর্ণমালা ভোর !
বুকের ভিতর ছবির জগৎ, ঝর্ণা ফুলের ঘোর !!

পাঁপড়ি থেকে ঝরলো আলো, পুচ্ছ নেড়ে তাই !
বললে পাগল চরকি বাতাস, ইচ্ছে উড়ে যাই !!

এক তারাটির সুর মেখেছে স্বপ্ন তুলির চর!
ঢেউ সাগরে ভাসছে এখন শঙ্খ দ্বীপের ঘর !!

মোহর নিয়ে আসবো ফিরে, গল্প হবে বেশ !
এইতো কাছেই ওড়না পাহাড়, বন্ধু মেঘের দেশ !!