আনন্দ-অসুখ কিংবা আবেগ অন্ধকারে বেঁচে থাকা অপ্রকাশ্য সুন্দর আর জীবন থেকে পালিয়ে বেড়ানো এই কবির জন্ম ২২ নভেম্বর ১৯৬৯ খ্রি: দিনাজপুর শহরের মাধববাটি গ্রামে। ইশ্কুল-কলেজ বিমুখ ছাত্রটি আপাদমস্তক কবি হয়ে ওঠেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নকালে, যুক্ত হয়েছেন সমকালীন কাব্যচিন্তায় এবং প্রতিষ্ঠিত করেছেন নিজস্ব কাব্যবাহন। বাংলাদেশসহ ভারতের কিছু সাহিত্যকাগজ লিটলম্যাগ, প্রতিষ্ঠিত সাহিত্যপত্রিকা এবং জাতীয় দৈনিকে লিখে নিজস্ব বৈশিষ্ট্যে পরিচিত হয়েছেন। শিক্ষকতা করেন- মূলত কবিতা লিখেন কিন্তু গদ্যচর্চায় তাঁর আগ্রহ প্রবল। ইতোমধ্যেই বাংলাদেশের কয়েকটি প্রতিনিধিত্বশীল-গবেষনামূলক পত্রিকায় তাঁর গদ্য সাড়া জাগিয়েছে। বর্তমানে তিনি এ প্রজন্মের কবিতার প্রবণতা: বিয়য় ও বিনির্মানশৈলি নিয়ে কাজ করছেন। গদ্যফর্মের নতুন আঙ্গিকের কাব্য-প্রকরণ আর নিজস্ব স্টাইলের মুক্তভঙ্গিতে সুখহালের জীবনাবলি রচনা করে চলেছেন। আত্মজ- অনুভব মুস্তাফিজ, নিঝুম মুস্তাফিজ। কাব্যের ঋষি মাসুদ মুস্তাফিজের দশটি গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে- বিষ্টির প্রহর গুনতে গুনতে , ব্রিজ পেরোচ্ছি না স্বপ্ন পেরোচ্ছি , সাহিত্যচিন্তা ও বৈচিত্র্যপাঠ , কিছু সমুদ্র কিছু বিষণœতা, , জলবাতায়নে রঙঘুড়ি , অবমুক্ত বৃত্তায়ন, স্বভাবদুর্বৃত্ত বাতাসে কুয়াশার কৃষ্ণতীথ,মাতালরোদে মেঘে অরণ্য,প্রতিবাদ ,সংকট এবং অপচয়ের কবিতা, সোনার বরন দুঃখ বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। তিনি জাতীয় রবীন্দ্রসঙ্গীত সম্মিলন পরিষদ, দিনাজপুর শাখার কার্যকরী কমিটির সম্পাদনা পরিষদের অন্যতম সদস্য। সম্পাদনা করছেন- নাক্ষত্রিক, অগ্নিসেতু, হাত আর বোতাম । সাহিত্যে অবদানের জন্যে ২০১২ তে সম্মাননা পেয়েছেন ক্যাপ্টেন মনসুর আলী সাহিত্য পদক।
কবির এগারোতমকাব্য মনে করো মনে করোনি-হৃদমনন খচিত স্বপ্নকারুজ।

masudmustafiz@gmail.com