ঘুরছি নানান বাঁকে

চিড়িয়াখানার পশুপাখি
যেমন স্বাধীন থাকে
তেমনি ভাবে স্বাধীন থেকে
ঘুরছি নানান বাঁকে।

ইচ্ছে হলেও যায় না বলা
সত্য কথাগুলো
স্বাধীনতার উঠোনটাতে
জমছে নোংরা ধূলো।।
……………………………………………

পিচ ঢালা পথ নেই

পিচ ঢালা পথ নেই
নেই ভালো রাস্তা
কোথায় এমন দশা
বলি শোন আজ তা-

ঢাকা শহর থেকে
সে অনেক দূর
কুড়িগ্রাম জেলাতে
নারায়ণপুর।।
……………………………………………

স্বপ্ন তোকে ঘিরে

হঠাৎ করে পেলাম তোকে
অশেষ লোকের ভীড়ে
মনের মত ঘর সাজাব
স্বপ্ন তোকেই ঘিরে।

খুব সহজে হয়ে গেলি
সব’চে আপন জন
কল্পনাতে ছবি এঁকে
দিলাম তোকে মন।

পাখিরে তুই কষ্ট পেলে
ভীষণ কষ্ট পাই
তুই ছাড়া এই হৃদয় মাঝে
অন্য কেহ নাই।।
……………………………………………

এবার কথা পাক্কা

ইচ্ছে জাগে তোমায় আরো
ভীষণ কাছে পাবার
তাই নিয়েছি অনুমতি
আম্মু এবং বাবার।

প্রস্তাবটা পৌঁছে যাবে
এবার তোমার বাড়ি
ভাইয়া ভাবি বলছে কথা
আভাস পাচ্ছি তারই।

অনেক হলো আর দেরি নয়
এবার কথা পাক্কা
একই সাথে তোমার আমার
ঘুরবে জীবন চাক্কা।।
……………………………………………

করব সই

কদিন পরে
আমার ঘরে
আনব তোমায় সাজিয়ে।
জানবে সবে
আমার হবে
জানাব ঢাক বাজিয়ে।

অনেক খুঁজে
বুঝেসুঝে
দুইজনে সম্মত হই।
আমরা রাজি
আসবে কাজী
দলিলটাতে করব সই।।
……………………………………………

হাঁসের ছানা

পুকুর পাড়ে বসে বসে
আরিফ জারিফ হেনা
ভাবছে গাঁয়ের অনেক কিছুই
অদেখা অচেনা।

ঠিক তখনই পাশে এসে
হাঁসের ছানা হেসে হেসে
বলল- আছে জানা?
এই পুকুরে নামা নাওয়া
ঢিল ছুড়তেও মানা।

ছুড়লে কেহ ঢিল
পড়বে পিঠে কিল।।
……………………………………………

আর দেরি নয় আর

আজ সারাদিন ঘুরব শুধু
ঘুরব শহরজুরে
দুচোখ ভরে দেখব সবই
হাওয়ায় উড়ে উড়ে।

আমার সাথে থাকবে আমার
বন্ধু- পরির দলও
সঙ্গী হতে চাইলে কেহ
করতে পার কলও।

অনলাইনে আছি আমি
মেসেঞ্জারও খোলা
দলটাকে আজ ভারী করে
হব আত্মভোলা।

ফুড়ুৎ করে উড়ে যাব
ফেন্টাসি কিংডমে
স্বচ্ছ পানি গায় ছিটিয়ে
উঠবে খেলা জমে।

সেখান থেকে নন্দন পার্ক
নয়তো বেশি দূরে
নানার রকম রাইড আছে তাও
দেখব ঘুরে ঘুরে।

ধানমন্ডি লেকের উপর
আড্ডা দিয়ে শেষে
সন্ধ্যেবেলা হাতিরঝিলে
মিলব সমাবেশে।

দিনটাকে আজ এমনিভাবে
করেই দেব পার
জলদি করে বেরিয়ে পড়
আর দেরি নয় আর।।
……………………………………………

সুযোগ পেলে

মাথার উপর ঘুরছে পাখা
সুইচ টিপলেই আলো
তবু এমন বন্দি ঘরে
আর লাগে না ভালো।

আমার ভীষণ ইচ্ছে করে
হাঁটতে নরম ঘাসে
গাছগাছালি ফুল পাখি সব
থাকবে আশেপাশে।

সুযোগ পেলে খেলবো আবার
ক্রিকেট ও ফুটবলও
এমন পরিবেশে বাবা
আমায় নিয়ে চলো।।
……………………………………………

ঈদের ঢাকা

ঈদের নামাজ পড়বো বলে
চলে এলাম ঢাকা
রাস্তা ঘাট ও অলিগলি
লাগছে ফাঁকা ফাঁকা।

বাতাসে আজ একটুও নেই
তেল পোড়া ওই গন্ধ
উৎপাতে যার শ্বাসনালীটা
আসতো হয়ে বন্ধ।

যানজটও নেই কোন দিকে
অন্য দিনের মতো
কেমন করে বোঝাই বলো
লাগছে খুশি কতো!!
……………………………………………

শূন্য তবু ঘর

কম করি না কামাই বাবা
শূন্য তবু ঘর
ভাবতে গেলেই চক্ষু ভেজে
বুক কাঁপে থর থর।

তুমি ছিলে বলেই ছিল
বুকটা সাহস ভরা
কিন্তু আজি আষাঢ় মাসেও
চলছে ভীষণ খরা।

শান্ত পরিবেশটা কিংবা
তীব্র কোন ঝড়ে
সবসময়ই বাবা তোমায়
ভীষণ মনে পড়ে।