মিনহাজুল ইসলাম মাসুম Minhazul Islam Masum চট্টগ্রাম জেলার বোয়ালখালী থানার সারোয়াতলী ডাকঘরের ধোরলা গ্রামে ১৯৭৪ সালে ২৭ অক্টোবর জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা মরহুম কাজী মোহাম্মদ ইসমাইল ও মা মিসেস সাহারা বেগম। মাসুম পাঁচ ভাই ও দুই বোনের মধ্যে পঞ্চম। ২ ছেলে এবং ১ মেয়ে
পরিবারে ও স্ত্রীকে নিয়ে বর্তমানে তিনি চট্টগ্রাম মহানগরীর চান্দগাঁওতে বসবাস করছেন।

তিনি স্যার আশুতোষ সরকারি কলেজ, বোয়ালখালী, চট্টগ্রাম হতে ইন্টার ও বিএসসি পাস করেন, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে চট্টগ্রাম কলেজ হতে এম.এস.সি (বোটানি-ফার্স্ট ক্লাস) এবং আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম হতে মার্কেটিং-এ এমবিএ করেন।

মিনহাজুল ইসলাম মাসুম ব্যবসা করছেন। তিনি হজ্ব ও ব্যাবসায়িক কাজে বহুবার সৌদি আরব গমন, এছাড়া সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ভুটান ভ্রমণ করেন। তার শখ খেলাধুলা, বইপড়া, ভ্রমণ ও সমাজসেবা।

তার প্রকাশিত প্রবন্ধের বই ১। হৃদয়ে বাংলাদেশ (২০০২), ২। গণতন্ত্র সরকার রাজনীতি (২০০৪), ৩। আমরা কেন বুঝতে পারছি না (২০০৬), ৪। যেমন বাংলাদেশ চাই (২০০৮), ৫। রাসূল (সা) আমার ভালোবাসা (২০১১), ৬। সিরাতুল মোস্তাকিম : জান্নাতের রোডম্যাপ (২০১২), ৭। নারী সমাজের উন্নয়ন-প্রেক্ষিত ইসলাম (২০১৪), ৮। ইসলামে হজ্ব ও উমরাহর বিধান (২০১৫)। উপন্যাস : ৯। কর্ণফুলীর গাঙচিল (২০১৮)। গল্প: ১০। স্লো পয়জনিং (২০১৯)। শিশু-কিশোর গল্প: ১১। ভূতের কবলে দরবেশ বাবা (২০২০), ১২। ছোটদের বিশ্বনবি (সা) (২০২০), ১৩। হযরত ইউসুফ (আ.)-ক্রীতদাস থেকে প্রধানমন্ত্রী (২০২১), ১৪। নবিজি (সা.)-এর সংগ্রামী জীবন (২০২১)। ছড়ার বই ১৫। বাবার খুশি মায়ের হাসি (২০১৮)। কাব্যগ্রন্থ: ১৬। মন্তব্য নিষ্প্রয়োজন (২০০৫), ১৭। হৃদয় গোলাপের পাপড়িগুলো (২০১৬)। দ্বৈত কাব্যগ্রন্থ: ১৮। গ্ল্যাডিওলাস (২০১৭)। মিনহাজুল ইসলাম মাসুম সম্পাদনা করেন ১৯। রক্তে ভাসে ইরাক (২০০৩), ২০। বক্ষে আমার কাবার ছবি-চক্ষে মোহাম্মদ রাসূল সা. (২০০৭), ২১। হজ্ব স্মারক: মামুন ট্রাভেলস লিঃ (২০১৩), ২২। আমি মেঘ হবো-যৌথ কাব্যগ্রন্থ (২০১৬), ২৩। সবুজ কবির স্মারকগ্রন্থ (২০২০)।

তিনি ‘ইদানীং’ লিটলম্যাগ এর সম্পাদক। ইদানীং সাহিত্যচর্চা কেন্দ্র-চট্টগ্রাম এর প্রতিষ্ঠাতা এবং সালফি পাবলিকেশন্স এর প্রকাশক।

তিনি সম্মাননা পান ১. মানব কল্যাণ ফাউন্ডেশন, চট্টগ্রাম (২০১২); ২. ডিজিটাল বাংলাদেশ পাবলিসিটি কাউন্সিল, চট্টগ্রাম (২০১৪); ৩. ইউনাইটেড মুভমেন্ট হিউম্যান রাইটস্ শান্তি পদক (২০১৬); ৪. আন্তর্জাতিক কবি পরিষদ কর্তৃক কাব্যরথী সম্মাননা (২০১৮); ৫. আল ইহসান ফাউন্ডেশন কর্তৃক সম্মাননা (২০২০)