১৩১.
অবমানিত
সজল দু’টি চোখ
অপরাজিত।

১৩২.
সবল হাত
কঠিন শ্রমে খোলে
দু’খী বরাত।

১৩৩.
শাওন কাঁদে
আকাশ মুখভার
মেঘ-নিনাদে।

১৩৪.
শুষ্ক বালু
নরম শীত-রোদ
পোড়া মিঠা’লু।

১৩৫.
ঘাট আ-ঘাট
মানে না ডোমনারী
দেহ নিপাট।

১৩৬.
থির পুকুর
মাছেরা ঘাই মারে
মাঝ দুপুর।

১৩৭.
ওড়ে জোনাকি
নীরবে আলো ফেলে
রজনী বাকি।

১৩৮.
অন্ধ পুরো-
বাতাস উড়িয়েছে
মরিচ-গুঁড়ো।

১৩৯.
সর্ব ঘটে
কাঁঠালি কলা, সে তো
চতুর বটে।

১৪০.
শুকনো বালু
আখের ঝোলাগুড়
শীত সূচালো।