অনুবাদ ও মৌলিকতা নিয়ে নোবেল লরিয়েট মেক্সিকান কবি অক্টোভিও পাজের উক্তিটি স্মরণ করা যায়: Each text is unique, yet at same time it is the translation of another text.No text can be completely original because language itself, in its very essence,is already a translation – first from the nonverbal world,and then, because each sign and each phrase is a translation of another sign, another phrase.
ভাষার যখন অনুবাদ হয় সাহিত্য তখন বিশেষ রূপ পরিগ্রহণ করে। তাই অনুবাদ সম্পর্কে যা রটনা হয় সেটা হচ্ছে অনুবাদে যা হারিয়ে যায় তাই কবিতা। অথচ এটা সত্য কবিতা কখনই বোঝবার বিষয় নয়, যতটা উপলব্ধির। আর উপলব্ধির প্রেক্ষিতে কবিতার ভাষ্য ভিন্ন ভিন্ন হওয়া স্বাভাবিক। তবু ভালোলাগা ও ভালোবাসা থেকে এক ভাষা থেকে অন্যভাষায় সাহিত্য অনুবাদ হয়। বাংলা সাহিত্যের আদি অনুবাদ চতুর্দশ শতকের কৃত্তিবাসী রামায়ন থেকে শুরু করে আজ পর্যন্ত আমরা সমৃদ্ধ হয়েছি বিশ্বসাহিত্যের অনুবাদের মাধ্যমে। সাহিত্যে এ পরিগ্রহণ প্রাণময়তার প্রতীক।

রুপি কৌর, ১৯৯২ সালে জন্ম নেয়া এ সময়ের জনপ্রিয় তরুণ কবি।এ নারীবাদী তরুণ লেখিকা নিউ ইয়র্ক টাইমস বেস্ট সেলিং তালিকায় স্থান পাওয়া এ প্রজন্মের একজন চিত্রকর কবি।
তিনি পাঁচ বছর বয়সে ছবি তুলতে শুরু করেন, যখন তার মা তাকে একটি প্যাচব্রাশ দেন এবং বলেন – হৃদয় থেকে বেরিয়ে আস। রুপি যেন শৈল্পিক ভ্রমণের একটি অনুসন্ধান হিসাবে তার জীবনকে দেখে। অলঙ্কারশাস্ত্র অধ্যয়নে তার ডিগ্রি সম্পন্ন করার পর ২২ বছর বয়সে ২০১৪ সালে প্রথম কবিতা ‘দুধ ও মধু’ প্রকাশ করেন। আন্তর্জাতিকভাবে প্রশংসিত, সংগ্রহ, বিক্রিত একটি মিলিয়ন কপি। নিউ ইয়র্ক টাইমস বেস্ট সেলিং তালিকায়, এবং প্রতি সপ্তাহে এক বছর ধরে এটি ভাল বিক্রি বই হিসেবে চিহ্নিত। এটি ত্রিশ ভাষায় উপরে অনুবাদ হয়েছে। তার দীর্ঘ প্রতীক্ষিত দ্বিতীয় কবিতা সংগ্রহে ২০১৭ সালে প্রকাশিত হবে। এ কবি ভালোবাসা থেকে বিভিন্ন থিম অনুসন্ধান করেন। যেমন : ক্ষতি, ট্রমা, হিলিং, নারীত্বের মাইগ্রেশন, বিপ্লব। রুপির কবিতা সারা বিশ্বে প্রচারিত হয়েছে। তার ফটোগ্রাফি এবং শিল্প দিকও উষ্ণভাবে গ্রহণ করা হয় এবং তিনি আগামী বছরের জন্যেও এই অভিব্যক্তি অবিরত আশা করেন।

২৫ বছরের রুপি কৌর কে ‘দুধ ও মধু ‘ কাব্যের জন্য তার প্রজন্মের কন্ঠ বলা হয়।(লেনা ডানহাম।)
প্রকাশক অ্যান্ড্রুজ ম্যাকমেলের মতে, মিল্ক এবং হানি, কবির কবিতার বই এবং অপব্যবহার এবং নিরাময় সম্পর্কে গদ্য, প্রায় ১.৫ মিলিয়নের বেশি কপি বিক্রি করে একটি বিস্ময়কে ছিনিয়ে নেয়া বই।
তিনি কানাডার টরন্টো ভিত্তিক লেখক, যিনি ভারতে জন্মগ্রহণ করেন। ৫ বছর থেকে টরেন্টোতে বসবাস করে আসছেন।তার ভক্তদের জন্য আরও অপেক্ষায় আছে: অক্টোবরে একটি নতুন গ্রন্থ।

তার প্রকাশকের মতে, দ্বিতীয় বই ‘দুধ এবং মধু ‘ এর অনুরূপ।এটি “অ প্রথাগত এবং গভীর ব্যক্তিগত কবিতা এবং মূলত কবিতার একটি সংগ্রহ, সমৃদ্ধ, মনোযোগ নিবদ্ধ, প্রেম এবং নিরাময়, পূর্বপুরুষ এবং এর শিকড় সন্ধ্যান, প্রবাস এবং নিজেকে ভিতরে একটি ঠিকানা খুঁজে নেয়া, উত্থাপিত।”

তার ‘দুধও মধু’ কাব্যের প্রতিটি কবিতাকে তিনি বিষয় নিত্তিক ড্রয়িং দিয়ে অলংকৃত করেছেন। তিনি আবৃত্তি শিল্পীও বটে।রুপি কৌর লিখেন ইংরেজি স্মল কেইজ ব্যবহার করে। আমাদের পঞ্চাশের কবি শহীদ কাদরীর মত কোন বিরাম চিহ্ন ব্যবহার না করে, লিখেন কবিতা। তিনি শিখ সম্প্রদায়ের লেখিকা। তার ধর্মে গুরমুখী হরফে আপার কেইজ নেই, যতি চিহ্নের ও তেমন ব্যবহার হয়না, একটিকেই তিনি কবিতায় অনুসরণে সম্ভবত সচেষ্ট হয়েছেন। নিজের সংস্কৃতিকে তুলে ধরতে তার এই প্রয়াস প্রশংসার যোগ্য। রুপি কৌর মূলত নারীবাদি কবি, তবে নারীদের প্রতি সহিংসতা, মেয়ে শিশু কিংবা মেয়েদের প্রতি যৌন নিগ্রহ, যৌনতা, প্রেম ইতাদি তার ভাবনা, ছবি ও কবিতার বিষয় নির্ভর। তারুণ্যের আবেগে কিছুটা খোলামেলা ড্রয়িংগুলো প্রবল নারীবাদী মননের প্রতিফলন ।

১.
তোমার শিল্প
কতেক মানুষ সম্পর্কে নয়
তোমার কাজের মত
তোমার শিল্প
সম্পর্ক ;
তোমার হৃদয় তোমার কাজে লাগে যদি
তোমার আত্মা তোমার কাজে লাগে যদি
এটা কীভাবে সৎ সম্পর্ক?
তুমিতো নিজের সাথে আছো
এবং তুমি
কখনো হবে না
বাণিজ্যিক সৎ
আপেক্ষিকতার

২.
তোমার নাম
শক্তিময়
ভাল ও মন্দ
যে কোনো ভাষার ধারণা-
আমাকে পথ দেখায়
অথবা
দিন দিন কষ্ট দিয়ে যায়

৩.
তোমার শরীর
জাদুঘর,
প্রাকৃতিক বিপর্যয়
তুমি কীভাবে টের পাও?
তুমি কীভাবে হও চমৎকৃত?

৪.
চাই দুটো হাত
ধরে রাখতে
আমার নয়
তোমার,
চাই দু’টো ঠোট
চুমু খেতে
আমার নয়
অন্য কোথাও

৫.
একজন নারী শ্রেষ্ঠতর কি শিখবে?

যে দিন থেকে সে একক
যার ইতোমধ্যে নিজের প্রয়োজনীয় সব ছিল
এটা যে বিশ্ব বিশ্বাস করে নি – তিনি নয়

৬.
অবশ্যই
আমি হতে চাই
সফল কিন্তু
আমি আশা করি না শুধু
আমার জন্য সাফল্য,
আমাকে হতেই হবে
সফল
যথেষ্ট লাভ করতে
দুধ ও মধু;
তাদের সাহায্যের জন্য
আমার আশপাশে
যারা সফল

৭.
যখন মা দ্বিতীয় সন্তানের গর্ভবতী ছিলেন
তখন আমি তার চারপাশের চারদিক তাকালাম,
মা যেনো দ্রুত এমন স্ফীত হয়েছে।
বাবা আমাকে বোধের বাইরে দাঁড় করালেন এবং
বলেছিলেন ঈশ্বর রয়েছে কাছে।
নারীর শরীর- যেখান থেকে এক একটি জীবন আসে
এবং একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ জীবনের শক্তি সম্পর্কে জানিয়ে ছিলেন,
সমগ্র বিশ্বকে দেখতে, আমাকে পরিবর্তন করেছে-
আমার মায়ের পায়ের বিশ্রাম

৮.
দু’পা ফাঁক করে যেম্নি ইজেল
দাঁড়িয়ে থাকে,
তোমাকে পড়লে মনে-
একটি চিত্রের প্রতীক্ষাতে
আমিও দাঁড়িয়ে থাকি,
দু’পা দু’দিকে করে
পরীক্ষাতে

৯.
যখন গর্ভশূণ্য হলো মায়ের,
আমির অন্তর্ধান হলো প্রথম
শেখা হলো একটি পরিবারের সংকোচন,
যারা তাদের মেয়েদের অদৃশ্য হওয়া করে পছন্দ
দ্বিতীয় ছিল
শূণ্যতার শিল্প
সহজ
যখন তারা বিশ্বাসের কথা বলে
তুমি কিছুই না
এটা নিজেদেরই পুনরাবৃত্তি
একটি ইচ্ছার মত-
আমি কিছুই না
আমি কিছুই না
আমি কিছুই না
তাই প্রায়
তার একমাত্র কারণ তুমি জান
তুমি এখনো আছো বেঁচে
তোমার বুকের উঞ্চতায়
শূণ্যতার শিল্প

১০.
শরীরের শূণ্যতা পুরণে
তোমাকে চাইনি
নিজেই নিজের পূর্ণতা চাই
সম্পূর্ণিমা হতে চাই
আলোকের গাঠনিক শূণ্যতা ছুঁয়ে
জ্বলবো আমি
একটি নগর আলোময় করতে
এবং এরপর
তোমাকে চাই
তোমার সাথে জ্বালাতে চাই
দ্রোহের আগুন