ওমা আমার একটা কথা রাখবে? বলনা মা। এই কথা বলেই মা, এর গলা ধরে ঝুলে পড়ল ঝুমা। ওরে ছার ছার আগেতো বল কি কথা তোর, না শুনে কি করে বলবো তোর কথা রাখা যাবে কিনা? ওমা আমার স্কুল থেকে সবাই বনভোজনে সুন্দর বন যাবে আমিও কিন্তু যাবো নাকরতে পারবে না। সুন্দরবন…
ওভাবে বলছো কেন কতো লোক সুন্দর বন বেড়াতে যায় ওমা ওমা বল না আমি যাচ্ছি তো। জানি না আমি তোকে অনুমতি দেওয়ার কে? মানে… তুই তোর বাবাকে চিনিসনা।
চিনি তো সেই জন্য ইতো তোমাকে বললাম তুমি বাবাকে ম্যনেজ করবে। আমার কথা তোর বাবা শুনবেনা। অতো কথা আমি জানিনা আমি যাবোই।

ঝুমার বাবা একজন সাধারণ মানুষ, ছোট একটা পান বিড়ি র দোকান। কোন রকমে তিন জনের সংসার চলে যায়। ঝুমা তার একমাত্র মেয়ে। কোন রকমে পড়ার খরচ টা চালায় মেয়েটি খুব মেধাবী তাই ওর পড়াশোনা বন্ধ করেনি। যখনই শুনলো ঝুমা সুন্দরবন পিকনিকে যাওয়ার বায়না ধরেছে ওর বাবাতো রেগেই লাল বলছে কই সে এদিকে আসতে বলো। বাবার চেচামেচি শুনে ভয়ে ভয়ে এসে দাড়ালো বাবার সামনে বলল, রাগ করনা বাবা আমার বহুদিনের সখ সুন্দর বন দেখা। সেতো বুঝলাম যাদের নুন আনতে পান্তা ফুরায় তাদের এসব শখ মানায়না।টাকা কোথায় পাবি আমার কাছে তো নেই। মা দেবে, ওর মা মেশিনে টুকটাক শেলাইএর কাজ করে ওতে দুপয়সা হয়। ঠিকয়াছে যা ভালো বোঝ তাই কর। ঝুমাতো মহাখুশি।

ও মা বাবা রাজি এবার জব্বার স্যারের কাছে টাকা জমা দিতে হবে। কাল বাদে পরশু রওনা। আচ্ছা ঝুমা তোর সাথে যদি আমি যাই কোন সমস্যা আছে? ওমা তুমি যাবে? তুমি গেলে আমি তো মহা খুশি। আচ্ছা তাহলে তোর স্যারকে বলিস যে আমি যাচ্ছি। ঠিক য়াছে মা।

পরের দিন রবি বার ওরা রওনা হলো লঞ্চে করে। ও একটা কথা বলা হয়নি ঝুমাদের বাড়ি খুলনায় ও ইকবাল নগর সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ে পড়ে। আর সেখান থেকে ই সকলে পিকনিকে যাচ্ছে। খুব আনন্দ করছিলো সব মেয়েরা। প্রায় সবমেয়ের সাথে ই গার্ডিয়ান আছে। কেউ গাইছে কেউ নাচছে আবার কেউ কেউ আবৃত্তি করছে। এর মাঝে জব্বার স্যার এসে বললেন কি রে মেয়েরা তোরা যে সুন্দর বন যাচ্ছিস তা সুন্দর বন সমন্দে কিছু জানিস? কেউ বলল জানি স্যার ঐ তো সুন্দর বনে বড়ো বড়ো সাপ আছে বাগয়াছে এই আরকি। কেউ বলছে আরও অনেক কিছু আছে। আচ্ছা আচ্ছা বুঝতে পেরেছি এবার তোমরা সকলে গোল হয়ে বস আমি তোমাদের বলছি। ঠিকয়াছে স্যার এই আমরা সবাই বসলাম, এবার বলুন। স্যার বলতে শুরু করলেন, এই বনের নাম সুন্দর বন কেনো যানো? সুন্দরি গাছের নাম অনুযায়ী সম্ভবত এই বনের নাম হয় সু ন্দরবন। সকলের ধারণা এখানের জল লোনা কিন্তু না ক্ষেত্র বিশেষে মিস্টিজলও প্রবাহিত হয়। এখানে আছে বিভিন্ন ধরনের গাছযেমন সুন্দরী, গেওয়া, পশুর, কেওরা গোল পাতা। বিভিন্ন ধরনের পশু পাখি আছে। তোমার সকলেই হয়তো জানো যে এখানে রয়েল বেঙ্গল টাইগার আছে কিন্তু বর্তমানে কিছু দুষ্ট লোক গোপনে তাদের মেয়ে ফেলেছে। আরও আছে হরিণ, বানর, বনবিড়াল, বিভিন্ন ধরনের মাছ।এখনে মৌয়াল রা মধু সংগ্রহ করতে আসে। তোমারা বুঝতে পেরেছো। হ্যা স্যার আমরা অনেক কিছু জানতে পাড়লাম। আচ্ছা আমরা গল্প করতে করতে চলে এসেছি সুন্দর বন। শোনো মেয়ে রা কেউ কিন্তু বেশি হুরাহুরি করবানা আর একা একা কেউ কিন্তু ভিতরে যাবা না। এক এক করে সব লঞ্চ থেকে নামলো অবশেষে নামলো ঝুমা আর বলল মা অবশেষে আমার শখ মিটলো, এলাম সুন্দরবন।