মন পবনের নাও : মানসিংহের জাহাজ ও কোষাকান্দা গ্রাম

বিখ্যাত বীর ঈসা খাঁ। বাংলার বারো ভুঁইয়াদের নেতা। তাঁর রাজধানী সোনারগাঁও। ব্রহ্মপুত্র, মেঘনা আর শীতলক্ষার মোহনায় অবস্থিত।
নারায়ণগঞ্জের অদূরে শীতলক্ষার তীরে তাঁর খিজিরপুর দুর্গ আর সুবিখ্যাত এগারো সিন্দুর। ব্রহ্মপুত্রের কোল ঘেঁষে দুর্গের অবস্থান।

নদীর অপর তীরে কাপাসিয়ার সুপ্রাচীন টোক বন্দর। কিশোরগঞ্জের এগারো সিন্দর। অল্প দূরে কোষাকান্দা গ্রাম।

দিল্লীর সম্রাট আকবরের সেনাপতি মানসিংহ। তিনি ঈসা খাঁ’র বিরুদ্ধে অভিযানে এসেছেন। যুদ্ধে মানসিংহের একটি ‘কোষা’ জাহাজ উল্টে যায়।

কিশোরগঞ্জের জঙ্গলবাড়ী ও এগারোসিন্দুর-এর মধ্যবর্তী স্থানে উল্টে যাওয়া সেই কোষা জাহাজের ওপর মাটির স্তর জমা হয়। বহু দিন সেখানে ছিল বিরাট ঢিবি।

এখন সেখানে গড়ে উঠেছে গ্রাম। তবে কোষা উল্টে যাওয়ার সে স্থানে কোষার আকৃতিটি এখনো লোকে ধরে রেখেছে। আগ্রহীরা এখনো তা দেখতে যায়।

কোষা নামক সেই যুদ্ধ জাহাজ থেকেই আজ সেই গ্রামের নাম কোষাকান্দা। এসব আমাদেরই নৌবাহিনীর গৌরব-গাথা।

মোগল বাহিনীর সাথে ঈসা খাঁ’র যুদ্ধ। নৌপথেই ছিল সে যুদ্ধের অধিক বিস্তার। ঈসা খাঁ’র নেতৃত্বে বাংলার বারো ভুঁইয়ারা মোগলদেরকে দীর্ঘদিন প্রতিরোধ করেন।

ঈসা খাঁ’র মৃত্যুর পর দিল্লীর সম্রাট জাহাঙ্গীরের আমলে ইসলাম খাঁ বাংলাদেশে অভিযান চালান। তার সাথে যুদ্ধ হয় ঈসা খাঁ’র পুত্র মুসা খাঁ’র। সেটাও ছিল ঘোরতর নৌযুদ্ধ। শীতলক্ষা নদীর বুকে।