কাগজ থেকে কাগজীটোলা : কাগজ বানানোর নানা কৌশল

বাংলাদেশের সব জায়গায় কাগজ তৈরির পদ্ধতি এক রকম ছিল না। একেক জায়গায় একেক রকম উপাদান ব্যবহার করা হতো। কাগজ তৈরির পদ্ধতিও কিছুটা ভিন্ন ছিল।

উলিয়াম হান্টারের লেখা বিখ্যাত বই ‘স্ট্যাটিস্টিকেল একাউন্টস অব বেঙ্গল’ থেকে আমরা বগুড়ায় কাগজ তৈরির পদ্ধতি সম্পর্কে জানতে পারি। বগুড়ায় কাগজ তৈরির জন্য পাট, শামুক বা ঝিনুকের চুন ও আতপ চালের সাথে ব্যবহার করা হতো কদু, তেঁতুলের বিচি এবং হরিতকি।

এসব কাঁচামাল ছাড়াও কাগজ তৈরির জন্য পানির বড় পাত্র, ঢেঁকি, বাঁশের খাঁচা, বাঁশ বা কাঠের দ-, পাথরের নুড়ি ইত্যাদি লাগতো।