কাগজ থেকে কাগজীটোলা : বাংলাদেশের নীল ও বিলাতের শিল্প বিপ্লব

বাংলাদেশের সম্পদ লুঠ করেই ঊনিশ শতকের প্রথমার্ধে ইংল্যান্ডে শিল্প-বিপ্লব শুরু হয়। কল-কারখানার প্রসার ঘটে। এসব কল-কারখানার কাঁচমাল হিসাবে কাঁচা চামড়া, পাট, কার্পাস ও নীল সংগ্রহ করা হতো বাংলাদেশ থেকে। সে-সব কাঁচামালে তৈরি জিনিসপত্র এনে আবার বিক্রি করা হতো বাংলাদেশে।

শিল্প বিল্পবের ফলে ইংল্যাণ্ডে বস্ত্রশিল্পের ব্যাপক উন্নতি হয়। বিলাতী কাপড় রং করার জন্য বাংলাদেশের নীলের চাহিদাও বাড়তে থাকে। ঊনিশ শতকের শুরুতে ইংল্যাণ্ডে ২০ লাখ পাউ- নীলের দরকার হতো। কিন্তু বাংলাদেশ থেকে তখন তারা সংগ্রহ করতো ৪৫ লাখ পাউণ্ডেরও বেশী নীল।

১৮১৩ সালে ইংল্যান্ডের দরকার ছিল ৩০ লাখ পাউ- নীল। কিন্তু শুধু বাংলাদেশ থেকেই তারা এর পাঁচ গুণ নীল আহরণ করতো। বাড়তি নীল বিদেশে রফতানি করে ইংরেজরা আরো অ-নে-ক বেশী মুনাফা করতো।