মন পবনের নাও : ডোঙ্গা আর ভেলার মাঝিরা

আমাদের দেশে নাওয়ের ব্যবহার শুরু হয় কয়েক হাজার বছর আগে। গাছের গুঁড়ি খোদাই করে ডোঙ্গা নৌকা বানানো হতো। কয়েকটি গাছ একসাথে বেঁধে তৈরি হতো ভেলা। ডোঙ্গা আর ভেলায় চরেই চলত পারাপার। ডোঙ্গা আর ভেলায় চরে আমাদের পূর্বপুরুষেরা বড় বড় নদী পাড়ি দিতেন।

তালগাছের গোড়ার অংশ দিয়ে বানানো তালের নৌকা বা ডোঙ্গা এখনো বাংলাদেশের লোকেরা ব্যবহার করে।

ডোঙ্গা আর ভেলার উন্নতি হলো নৌকায়। ধীরে ধীরে গড়ে উঠলো নৌ শিল্পের কেন্দ্র। দেশের নানান। আমাদের নৌশিল্পীরা দক্ষ কারিগর। তাদের সুনাম ছড়িয়ে পড়লো দেশ-বিদেশে। সবখানে।

সংস্কৃত ভাষার প্রাচীন কবি কালিদাস। ভিনদেশী এই কবিও আমাদের নৌশিল্পের উল্লেখ করেছেন। কালিদাস তাঁর কাব্যে আমাদের পরিচয় লিখলেনঃ বাঙালী নৌশিল্প বিশারদ।