নীলের দাদন : কালো দালালদের বাঁদরামী

এত অত্যাচার, এত জুলুম করেও নীলকররা তৃপ্ত ছিল না। ১৮৩৫ সালে দু’শ’ জন নীলকর ভারতের ইংরেজ গভর্নর জেনারেলের কাছে এক দরখাস্ত করে। তাতে তারা লিখে যে, নীলচাষীরা সবাই ঠগ, শঠ, প্রতারক, মিথ্যাবাদী এবং অকর্মন্য। কাজেই কোটি কোটি টাকা খাটিয়েও বেশী লাভ করা যাচ্ছে না। নীলকরদের আরো অভিযোগ, পুলিশ কিংবা আদালতও না-কি তাদরে এই ব্যবসায় খুব বেশী সাহায্য করছে না।

নীলকরদের এই অভিযোগ ছিল সত্যের বিপরীত। এই মিথ্যুক জালিম দরখাস্তকারীরা সবাই ইংরেজ ছিল না। কয়েকজন ছিল এদেশী নীলকর জমিদার। তাদের মধ্যে সবচে’ নামী ব্যক্তি দ্বারকানাথ ঠাকুর। এই দ্বারকানাথ ঠাকুর বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের দাদা। দ্বারকানাথ ঠাকুর ইংরেজদের দালালী করে কলকাতার একজন বড় ধনী ব্যক্তিতে পরিণত হন। জনগণকে শোষণ করতে তারা ছিলেন ইংরেজদের চাইতে বেশি সেয়ানা ও চালাক।