শীতকাল শেষ হলো। আল্ম অপা ও হাইডি আল্ম পর্বতে ফিরে গেলো। জুন মাসে ক্লারার কাছ থেকে একটি চিঠি এলো। চিঠি পড়ে হাইডি খুব খুশি হলো। ক্লারা ও তার দাদিমা এখন ব্যাগেজে অবস্থান করছেন। এটি একটি ছোট শহর যা ডরফ্লি থেকে খুব বেশি দূরে নয়। যেখানে লোকজন বিভিন্ন জিনিস কেনাকাটা করতে যায়। ভালো চিকিৎসাও পাওয়া যায় সেখানে। ক্লারা ও দাদিমা শীঘ্রই ডরফ্লিতে আসছেন।

“খুব মজা হবে, তাই না?” হাইডি পিটারকে উদ্দেশ্য করে বললো। পিটার খুশি হলো না। হাইডি তার বন্ধু। সে চায় না হাইডির আরো বন্ধু থাকুক।

এক সকালে হাইডি আল্ম নিচে তাকালো। সে একদল দল লোককে উপরে উঠতে দেখলো। দুজন ব্যক্তি একটি চেয়ার বহন করছে। চেয়ারে একটি মেয়ে বসে আছে। তারপর একজন মহিলা ঘোড়ায় চড়ে আসছেন। সবার পেছনে একজন লোক একিট খালি হুইল চেয়ার নিয়ে আসছেন।

শীঘ্রই ভ্রমনকারীরা আল্ম অপার বাড়িতে পৌঁছলো। ক্লারা ও হাইডি একে অপরকে আনন্দে জড়িয়ে ধরলো। বাকি তিনজন লোক ঘোড়াটি সাথে নিয়ে চলে গেলো।

“ওহ্, এখানে আমার খুব ভালো লাগছে।” ক্লারা খুশিতে আত্মহারা। সূর্যের পরিষ্কার আলোতে সবকিছু খুব সুন্দর লাগছিলো। পর্বতমালা, গাছপালা, ঘাস ও ফুল-পাখি সব কিছুকেই।

আল্ম অপা ক্লারাকে হুইল চেয়ারে বসালেন। হাইডি তাকে ঘরের চারপাশে ঠেলে নিতে লাগলো। সে ক্লারাকে পুরনো ফির গাছগুলো দেখাতে চায়। যেন সে ফুলের ঘ্রান নিতে পারে। শুনতে পারে বয়ে চলা বাতাসের গান।

তারপর আল্ম অপা খাবার প্রস্তুত করলেন। তিনি টেবিল ও চেয়ারগুলো ঘরের বাইরে নিয়ে এলেন। যাতে করে পর্বতগুলো দেখে দেখে তারা খেতে পারে। নীল আকাশের নিচে এমন একটি ভোজনশালা ক্লারা ও তার দাদিমা খুব পছন্দ করলো। ক্লারা তার পনিরটি শেষ করে আরো একটি চাইলো। অথচ বাসায় সে কখনো একটার বেশি চায় না।

সারাটা বিকেল ওরা দুজন ফির গাছগুলিন নিচে বসে গল্প করে কাটালো। দাদিমা ও আল্ম অপাও বয়স্ক বন্ধুদের মতো কথা বলছিল। তারপর ক্লারা ঘরের ভেতরটা দেখতে চাইলো। হুইলচেয়ারটি দরজা ুদিয়ে প্রবেশ করলো না। তাই আল্ম অপা তার শক্তিশালী হাতে তাকে তুলে নিলো। এমনকি তিনি তাকে মই বেয়ে হাইডির বিছানাতেও নিয়ে গেলেন।

“কতই না ভালো হত যদি আমি এখানে ঘুমাতে পারতাম!” সে আক্ষেপ করলো। “কেন নয়?” আল্ম অপা দাদির দিকে ফিরে তাকালেন, “আমি নিশ্চিত এই পর্বতের আলো-বাতাস তার জন্য খুব উপকারী হবে। আর আশা করি আমি তার দেখাশোনা করতে পারবো।”

দাদিমা ক্লারার উত্তেজিত চেহারার দিকে তাকালেন। তিনি ভাবলেন আসলেই এটা একটা ভালো পরিকল্পনা।
হাই দাদিমা একাই ব্যাগেজে চলে গেলেন। ক্লারা চার সপ্তাহর জন্য আলমে থেকে গেলো।

“আমি এখন পিটার ও ছাগলগুলোর সাথে দেখা করবো।” ক্লারা বললো। কিন্তু পিটার তাদের সাথে দেখা করেনি। সে হাইডির বন্ধুর সাথে দেখা করতে চায়নি।

দাদা স্নোয়ি ও ব্রাউনির দুধ দোহালেন। দুজনের জন্য দুটি বাটিতে করে দুধ নিয়ে এলেন। ক্লারা এর আগে কখনোই ছাগলের দুধ পান করেনি। তাই সে পান করার আগে ঘ্রান শুকে নিলো। তারপর সে সবটুকু দুধ খেয়ে নিলো। খাওয়ার পর তারা তাদের খড়ের বিছানায় গেলো। ঘুমানোর সময় হয়ে গেছে।